A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / যৌন জীবন / মেয়েদের যে জায়গাটিতে স্পর্শ করলে তারা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে !!

মেয়েদের যে জায়গাটিতে স্পর্শ করলে তারা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে !!

মেয়েদের যে জায়গাটিতে- মেয়েদের যে জায়গাটিতে স্পর্শ করলেই উত্তেজনায় পাগল হয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে – সপ্তাহের শনিবার নারীরা বিছানায় নিয়ন্ত্রণহারিয়ে ফেলেন বলে দাবি করা হয়েছে সদ্য প্রকাশিত এক গবেষণায়।

আড়াই হাজারেরও বেশি নারীর উপর জরিপ চালিয়ে এ তথ্য দিয়েছে হেলথ এন্ড বিউটি রিটেইলার ’সুপারড্রাগ’। জরিপের ফলাফলে বলা হয়,

বেশিরভাগ নারীরই সপ্তাহের অন্তত: একটি রাতে যৌন চেতনা তীব্রতর হয়।

আর সে রাতটি হলো শনিবার রাত।জরিপ ফলাফলে আরো বলা হয়, নিজেদের আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য নারীরা একাধিক পন্থা অবলম্বন করেন। এক্ষেত্রে উষ্ণ পানিতে গোসল তাদের বিশেষ পছন্দ। পছন্দের প্রথমে রয়েছে বডি স্প্রে’র ব্যবহার। তবে চুলের স্টাইল এবং মুখের হাসির প্রতিও তারা

এ রাতে মেয়েদের শরীরে এমন কিছু জায়গা আছে যেখানে স্পর্শ করলে মেয়েরা অনেক বেশি ’টার্ন অনহয়ে পড়ে। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই

ছেলেরা সেইসব অংশের দিকে নজর দেয় না। ফোরপ্লে সীমাবদ্ধ থাকে ব্রেস্ট, নিপলস আর কিসের মধ্যেই। তারপরেই ইন্টারকোর্স।

ব্যাপারটা যেন একঘেয়েই। কিন্তু কিছু জায়গায় স্পর্শ করে, ভালবেসে, পাগল করে দেওয়া যায় মেয়েদের।

১. ঘাড়ের পিছন দিকে: মেয়েদের শরীরে এটাই সবচেয়ে সেক্সুয়ালি টার্নিং অন এরিয়া। ছেলেরা কিন্তু অনেকসময় এই অংশটা এড়িয়ে যায়।

কিন্তু শুধু এখানে স্পর্শ করেও একজন মহিলাকে দ্রুত উত্তেজিত সম্ভব।

একজন মেয়ে যখন সামান্য টার্ন অন থাকে তখন তার পিছন দিকের চুল সরিয়ে ঘাড়ে হাত বুলিয়ে দেখুন। আস্তে আস্তে কিস করুন। দেখবেন আপনার সঙ্গিনী পাগল হয়ে যাবে। সামান্য লিক করুন, সুড়সুড়ি দিন। দেখবেন আপনার সঙ্গিনী উত্তেজিত হয়ে পড়েছেন।

২. কান: কানে হালকা স্পর্শ, চুম্বন অনেক বেশি সেক্সুয়ালি অ্যাট্রাক্টেড করে দেয় মেয়েদের। কানের উপর আস্তে আস্তে নিঃশ্বাস ফেললে পাগল হয়ে পড়বে আপনার সঙ্গিনী। হালকা কামড় দিতে পারেন কানের লতিতে। লিক করতে পারেন কানের চার পাশে যে কোন জায়গায়। কিন্তু কানের ছিদ্রে নয়, এটি মেয়েদের জন্যে একটা টার্ন অফ।

৩. উরু বা থাই: মেয়েদের দ্রুত উত্তেজিত করত তিন নম্বরটির পয়েন্টটির জুড়ি মেলা ভার। সঙ্গিনীর উরুর সফট স্পটে স্পর্শ করুন।

দেখবেন সে কি করে।

৪. হাতের তালু ও পায়ের পাতা: হাত দিয়ে প্রতি মুহূর্ত স্পর্শ করছেন, কিন্তু তার হাতেই যে লুকিয়ে আছে অসংখ্য সেক্সুয়াল ফিলিংস। সঙ্গিনীর হাতের উপর নিজের আঙুলগুলি বোলাতে থাকুন, সুড়সুড়ি দিন। এটিই যেন তাঁকে পরবর্তী সেক্সুয়াল অ্যাক্টিভিটিরই মেসেজ দেবে। দেখবেন সেও সাড়া দেবে। টার্ন অন করবে আপনার সঙ্গিনীকে।

৫. পিঠ: পিঠ, বিশেষ করে পিঠের নিচে, কোমরের দিকের অংশটাতে স্পর্শ ও আদর চায় মেয়েরা। মেরুদন্ড বরাবর চুমু দিতে দিতে নিচে নেমে যান। তাঁর সেক্স করার মুড আরও বাড়বেই।একটু বেশি যত্নশীল হন।

এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ’সুপারড্রাগ -এর সারা বোলওয়ারসন বলেন, ’আমরা একটি ভোটের ব্যবস্থা করেছিলাম। সেই ভোটের ফলের ভিত্তিতে আমরা জরিপটি চালাই।

তাতে দেখা গিয়েছে, নিজেদেরকে আকর্ষণীয় দেখাতে কী কী করতে হবে, সেটা নারীরাই সবথেকে ভালো বোঝেন।

কিন্তু সাধারণত নারীরা সর্বদা সে সব করেন না। সপ্তাহে যে কোনো একটি বিশেষ দিনে তাঁরা সেই সব পন্থা নেন। এবং সেটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শনিবার

/treickwalls.net

Check Also

স্বপ্নদোষ নাকি হস্তমৈথুন কোনটা বেশি ক্ষতিকর?

স্বপ্নদোষ নাকি হস্তমৈথুন- ভেজা স্বপ্ন বা সিক্ত স্বপ্ন (রাত্রিকালীন নির্গমন,  সিক্ত স্বপ্ন) যা প্রচলিত বাংলায় স্বপ্নদোষ …