Thursday , June 29 2017
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / Uncategorized / ডায়াবেটিস রোগীর ইফতার

ডায়াবেটিস রোগীর ইফতার

চিনি বা গুড় মেশানো কোনো খাবার বা শরবত খাবেন না
 ইফতারে ভাজা-পোড়া কম খেয়ে স্বাস্থ্যকর প্রোটিন বেশি রাখুন
 ডায়াবেটিসের রোগী সাহ্রি না খেয়ে কখনো রোজা থাকবেন না
আখতারুন নাহার, পুষ্টিবিদ
ইফতারে আমাদের দেশে নানা ধরনের ভাজা-পোড়া ও মিষ্টি খাবারের প্রচলন আছে। খেজুর, শরবত ও জিলাপি ছাড়া ইফতার যেন অসম্পূর্ণ। কিন্তু ডায়াবেটিসের রোগীরা এগুলো বাদ দিয়ে কীভাবে স্বাস্থ্যকর ইফতার বেছে নিতে পারবেন? এ বিষয়ে কয়েকটি পরামর্শ:
 চিনি বা গুড় মেশানো কোনো খাবার বা শরবত খাবেন না। তবে ডাবের পানি, ফলের রস, লেবু-লবণের শরবত খেলে শরীরের পানি ও লবণশূন্যতা দূর হবে। খানিকটা লবণ দিয়ে টকদইয়ের লাচ্ছি বা ঘোল পান করতে পারেন। যাঁদের কোষ্ঠকাঠিন্য আছে, তাঁরা ইসবগুল বা তোকমা মেশানো পানীয় বেছে নিতে পারেন।
 ইফতারে ভাজা-পোড়া কম খেয়ে স্বাস্থ্যকর প্রোটিন বেশি রাখুন। যেমন আদা-পুদিনা দিয়ে কাঁচা ছোলা, সেদ্ধ ছোলা না ভেজে শসা, টমেটো দিয়ে সালাদ করে খেতে পারবেন। টক-মিষ্টি ফলের সালাদ খান। ইফতারে একটি খেজুর খাবেন।
 মূল খাবারটা সাহ্রিতে খেতে হবে, দুপুরের সমপরিমাণ। ডায়াবেটিসের রোগী সাহ্রি না খেয়ে কখনো রোজা থাকবেন না। ইফতারের পর সন্ধ্যারাতে ভাত না খেয়ে বরং রুটি, ফলমূল, ওটস, দুধ, দই-চিড়া ইত্যাদি খেতে পারেন।
ডায়াবেটিক রোগীর জন্য দুটি আদর্শ খাদ্যতালিকা
মোট ১ হাজার ৩০০ কিলোক্যালরি
ইফতার: ছোলা আধা কাপ (৮০ গ্রাম), ছোট পেঁয়াজি ২টা, বেগুনি বা আলুর চপ ১টা, মুড়ি ১ কাপ, খেজুর ১টি, ফলের সালাদ আধা বাটি, রায়তা আধা কাপ।
সন্ধ্যারাত: আটার রুটি ২টা অথবা ১ কাপ ভাত বা ১ কাপ ওটস, সবজি ইচ্ছামতো, ১ টুকরো মাছ বা মাংস।
সাহ্রি: ভাত ২ কাপ, মাছ বা মাংস ১ টুকরো, ডাল ১ কাপ বা দুধ ১ কাপ, সবজি ইচ্ছামতো।

মোট ১ হাজার ৮০০ কিলোক্যালরি
ইফতার: ছোলা ৩ কাপ (১২০ গ্রাম), পেঁয়াজু ৩টা, বেগুনি ২টা বা আলুর চপ ১টা, মুড়ি ২ কাপ, খেজুর ১টা, ফলের সালাদ ১ কাপ, রায়তা আধা কাপ।
সন্ধ্যারাত: আটার রুটি ৩টা অথবা ভাত দেড় কাপ, মাছ-মাংস ২ টুকরো, সবজি ইচ্ছামতো।
সাহ্রি: ভাত আড়াই কাপ (৩০০ গ্রাম), মাছ বা মাংস ২ টুকরো (৬০ গ্রাম), ডাল বা দুধ ১ কাপ, সবজি ইচ্ছামতো।

Check Also

আদনান সামি, যেভাবে ২৩০ থেকে ৮৫ কেজি হলেন

দিনটি ছিল ২০০৬ সালের ৬ জুন। বেশ বড় এক টুকরো চিজ কেক, সেদ্ধ আলু আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *