Monday , September 25 2017
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / নারীর স্বাস্থ্য / নারীর হার্ট সুস্থ রাখার ৯ উপায়

নারীর হার্ট সুস্থ রাখার ৯ উপায়

পুরুষদের চেয়ে নারীদের হার্ট অ্যাটাক হয় কিছুটা বেশি বয়সে। তবে নারীদের হার্ট অ্যাটাক হয় নাটকীয়ভাবে যা সহজে বোঝা যায় না। তাই নারীদের হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখতে ৯টি বিষয়ের উপর জোর দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

১.খাওয়া-দাওয়া

স্বাস্থ্য ভাল রাখতে খাওয়া-দাওয়ার কোন বিকল্প নেই। স্বাস্থ্যকর খাবার যে হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না৷ যুক্তরাষ্ট্রের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষেজ্ঞ ডা. বেথ অলিভার বলেছেন,‘‘প্রতিদিন, প্রতিবেলায় বিভিন্ন রঙের ফল ও সবজি এবং যথেষ্ট পরিমাণে আঁশযুক্ত খাবার খান৷ মাংসের পরিবর্তে খান মাছ৷ তার সঙ্গে পানি, আপেল ও বিভিন্ন বাদাম বেশি করে খান আর কম খান চিনি, কফি বা চিনিযুক্ত পানীয়৷

২. ব্লাডপ্রেশার ও কোলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণে রাখা

প্রতিটি নারীর উচিত নিয়মিত ব্লাডপ্রেশার মাপা এবং কোলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণে রাখা, বিশেষ করে যাঁদের বয়স ৩৫ বছরের বেশি৷ এছাড়া প্রতি দু’বছর অন্তর শরীরের পুরো চেকআপ করানো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ এর সঙ্গে সঙ্গে লক্ষ্য রাখতে হবে, শরীরের ওজন যাতে ঠিক থাকে, এমনটাই বলেন বিশেষজ্ঞরা৷

৩. ৩০ মিনিট ব্যায়াম বা হাঁটাচলা

হার্ট সুস্থ রাখার মূলমন্ত্র ব্যায়াম অথবা খেলাধুলা৷ তবে দেখা যায় চাকরি, সন্তান, সংসার – এ সব নানা কারণে মহিলাদের নিজের দিকে নজর দেবার সময় থাকে না৷ ফলে অবহেলিত হয় শরীরচর্চার দিকটা৷ অথচ হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে প্রতিদিন ৩০ মিনিট জোড়ে জোড়ে হাঁটলেই যথেষ্ট উপকার হয়৷ এ কথা বলেন আরেক মার্কিন ‘কার্ডিওলজিস্ট’ ডা. আন মেকলাফলিন৷

৪. পেটের চর্বি কমানো জরুরি

হার্টের অসুখের ক্ষেত্রে শরীরের অন্যান্য অংশের চর্বির তুলনায় পেটের চর্বি অনেক বেশি বিপজ্জনক হয়, বলেন বিশেষজ্ঞরা ৷ মেয়েদের ক্ষেত্রে পেটের এই অতিরিক্ত চর্বি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়৷ তাই কোমরের মাপ ৮৯ সেমিটারের বেশি হলে তা হার্টে চাপ পড়ে বা হৃদপিণ্ডের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়ায়৷ তাই এক্ষেত্রে দিনে কয়েক মিনিট সময় বের করে শুধুমাত্র পেটের ব্যায়াম করলেও উপকার পেতে পারেন নারীরা৷

৫. ধূমপান এবং মদ্যপান

ধূমপান ও মদ্যপান পশ্চিমা বিশ্বের নারীদের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক হলেও আমাদের দেশে মোটেই তা নয়৷ যদিও আধুনিক যুগের অনেক মেয়েই আজকাল ধূমপান করে থাকে৷ ধূমপান নারীদের হার্ট অ্যাটাকের জন্য বড় ঝুঁকি এবং ধমনি সংক্রান্ত অসুখের জন্যও বিপজ্জনক৷ দিনে এক গ্লাসের বেশি মদ্যপান করলে, তা নারীদের রক্তচাপ এবং হৃদপিণ্ডের রক্ত সঞ্চালনে ব্যাঘাত ঘটায়৷ কাজেই হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখতে নারীদের ধূমপান ও মদ্যপান না করাই শ্রেয়৷

৬. পারিবারিক রোগ

যাঁদের পরিবারে হৃদরোগের ইতিহাস রয়েছে, তাদের আরও বেশি সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন৷ কারণ তাদের হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা অন্যদের তুলনায় অনেক বেশি থাকে৷ তাই নিয়মিত চেকআপের সময় আপনার ডাক্তারকে এ বিষয়টি অবশ্যই জানানো প্রয়োজন৷

৭. শ্বাসকষ্ট এবং পা ফুলে যাওয়া

কোনো নারীর নিয়মিত শ্বাসকষ্ট বা পা ফুলে গেলে অবশ্যই তাকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে৷ যাঁদের হৃদপিণ্ড দূর্বল, তাদের রক্তচাপ বেড়ে গেলে তা নারী-পুরুষ সকলের ক্ষেত্রেই হার্ট অ্যাটাক পর্যন্ত গড়াতে পারে৷ শ্বাসকষ্ট, কাশি, ক্লান্তি, পা ফুলে যাওয়া, হাঁটতে কষ্ট হওয়া, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন ইত্যাদি হলে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডাক্তার দেখানো উচিত৷

৮. সুস্থ হৃদপিণ্ড, সুস্থ পরিবার

আমাদের দেশের নারীরা স্বামী, সংসার আর সন্তানের মঙ্গল নিয়েই ব্যস্ত৷ নারী বা মা একটি সংসারের চালিকা শক্তি৷ তিনি অসুস্থ হলে সংসারে বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়৷ তাই সংসারকে সচল রাখতে নারীদের নিজের হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখতে হবে, নজর দিতে হবে নিজের দিকে৷ তবেই গড়ে উঠবে সুস্থ পরিবার, সুস্থ সমাজ৷

৯. হার্ট সুস্থ রাখতে হাসির বিকল্প নেই!

হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখতে হাসির বিকল্প নেই৷ তাই দিনে অন্তত একবার জোরে জোরে প্রাণ খুলে হাসুন – উপদেশ বিশেষজ্ঞদের৷ বিষণ্ণতা বিভিন্ন অসুখের জন্ম তো দেয়ই, এমনকি কোনো অসুখ সারতেও দেরি হয়৷ তাই হাসিখুসি আর আনন্দে থাকার চেষ্টা করুন৷ সূত্র: ডিডব্লিউডিই

Check Also

কৃত্রিম উপায়ে সন্তান জন্ম দান বা টেস্টটিউব বেবি মানে কি ?

টেস্টটিউব বেবি সম্পর্কে ভুল ধারণা অনেক। ‘টেস্টটিউব বেবি’, এই শব্দগুলো থেকেই অনেকের মনে ভুল ধারণার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *