Monday , June 26 2017
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / লাইফস্টাইল / পুরুষের কাছে নারিরা যা শিখতে পারে

পুরুষের কাছে নারিরা যা শিখতে পারে

সম্পর্কের ক্ষেত্রেনারী-পুরুষ একে অন্যের পরিপূরক। কিন্তু তার পরও ছোটখাটো কিছু ব্যাপারেস্বচ্ছ ধারণা না থাকায় দুই পক্ষের ঠোকাঠুকি লেগে যেতেই পারে। অথচ পরস্পরেরকাছ থেকে কিছু ব্যাপার নিজের আয়ত্তে নিলে এ ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়না কোনো পক্ষকেই।

এরই ধারাবাহিকতায় পুরুষের কাছ থেকে নারী কী কী শিখতে পারেন, তা নিয়েএকটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। পুরুষ যুক্তির পক্ষে থাকায়আবেগের নিয়ন্ত্রণ বেশ ভালোভাবেই করতে পারেন। ফলে বাস্তবের সমস্যার সমাধানতাঁরা কল্পনায় নয়, বাস্তবেই খোঁজেন। পুরুষের কাছ থেকে এগুলো শিখে নারী তাঁরপ্রাত্যহিক জীবনযাপনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারেন বলে প্রতিবেদনটিতে দাবিকরা হয়েছে।

যুক্তির পাঠ

জীবনের সবকিছুর পেছনেই যুক্তি আছে—এ কথাটাপুরুষেরা যত সহজে অনুধাবন করেন; নারীরা ততটা নয়। তাই পুরুষ সিদ্ধান্তনেওয়ার ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেন যুক্তিকে, আবেগকে নয়। পুরুষের এ গুণটি নারীরআয়ত্তে এলে তিনি জীবনের অনেক সমস্যারই সমাধান করতে পারবেন অনেক দ্রুতসময়ে।

আবেগের নিয়ন্ত্রণ

পুরুষের বিরুদ্ধে একটা সাধারণ অভিযোগ, তাঁদের আবেগ কম। তবে এ ব্যাপারে পুরুষের ভাষ্য একেবারেই ভিন্ন। তাঁরা মনেকরেন, সব সময় সবকিছুতে অতি আবেগ দেখানোর কিছু নেই। নিয়ন্ত্রিত আবেগের কারণেঅনেক কঠিন পরিস্থিতিও বেশ দক্ষতার সঙ্গে সামাল দিতে পারেন পুরুষ। আবেগেরনিয়ন্ত্রণ নেই—এমন অভিযোগে বেশির ভাগ সময় অভিযুক্ত নারীর কাছে পুরুষের এবিষয়টি শিক্ষণীয় হতে পারে।

ছোটখাটো বিষয় নিয়ে উদ্বেগ নয়

পরিবারের কোনো সদস্য হয়তো সকালের নাশতাকরেননি, এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশের সীমা থাকে না নারীর। বারবার তাঁরা এটিনিয়েই কথা বলতে থাকেন। তবে এ ক্ষেত্রে পুরুষের আচরণ ভিন্ন। সকালে নাশতা নাকরার মতো ছোট বিষয় নিয়ে উদ্বিগ্ন হতে তাঁরা কোনোভাবেই পছন্দ করেন না। কারণ, পুরুষ মনে করেন, ছোটখাটো বিষয় নিয়ে মাথা যত কম ঘামানো যায়, জীবন ততইসুন্দর হয়।

অপ্রয়োজনে নিন্দা নয়

নারীদের ব্যাপারে একটা সাধারণ অভিযোগ, কয়েকজন একসঙ্গে হলেই নাকি তাঁরা নিন্দায় মেতে ওঠেন। পুরুষ যে অন্যের নিন্দাকরেন না, তা নয়। তবে সেটা নারীর তুলনায় অনেক কম। পুরুষেরা মনে করেন, অতিপ্রয়োজন ছাড়া নিন্দা করে আড্ডায় নিজেদের সুন্দর সময় নষ্ট করার কোনো মানে হয়না। এর চেয়ে ওই সময়টাতে অন্য কোনো বিষয় নিয়ে ইতিবাচক বা হালকা আলোচনা করলেমন প্রফুল্ল রাখা যায়।

রসবোধ

রসবোধ মানুষকে প্রফুল্ল চিত্তে সুন্দরভাবেবাঁচতে সহায়তা করে। আর পুরুষের রসবোধ প্রকৃতিগতভাবেই একটু বেশি থাকে বলেপ্রচলিত। খুব ছোটখাটো বিষয় থেকে কীভাবে হাস্যরস নিংড়ে নিতে হয়, পুরুষের কাছথেকে নারীর তা অতি শিক্ষণীয় ব্যাপার।

কল্পনা নয়, বাস্তবে বাঁচো

নারী অনেক বেশি কল্পনাবিলাসী বলে দুর্নামআছে। তাঁরা কল্পনার জগতে বাস করতে পছন্দ করেন। তবে পুরুষ নাকিবাস্তবজ্ঞানসম্পন্ন বেশি, তাই তিনি বাস্তব জীবনের সমস্যার সমাধান বাস্তবেইখোঁজেন। ব্যক্তিগত জীবন, সম্পর্ক বা বিবাহিত জীবন সম্পর্কে যেকোনো ধরনেরসমস্যায় যুক্তির বিবেচনায় সমাধান পেতে চান পুরুষেরা। নারী যদি এভাবে দেখতেপারেন, তাহলে খুব সহজেই অনেক সমস্যার সমাধান তিনি করতে পারবেন।

Check Also

আপনি কী বারবার ভুলে যান? তাহলে বিপদ

ছোটখাটো সব জিনিস ভুলে যাচ্ছেন? ভুলেও হেলাফেলা করবেন না। কারণ অল্পস্বল্প ভুলে যাওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *